ক্লায়েন্টের সাথে মেসেজ বা স্কাইপে যখন কাজ পাওয়া নিয়ে কথা হবে:

১) ক্লায়েন্ট আপনার প্রপোজালের উত্তর দেয়া মানেই ধরে নিবেন আপনি অন্য ৮০% প্রতিদ্বন্দ্বী থেকে এগিয়ে আছেন। গড়ে একটা জবে প্রায় ৩০টার মত প্রপোজাল আসে। সেখান থেকে ক্লায়েন্ট ৫-৬ জনের সাথে কথা বলে। আপনাকে নক দিয়ে কথা বলতে চাওয়া মানেই আপনার সুযোগ সৃষ্টি হলো এই সম্ভাব্য ক্লায়েন্টকে, নিজের ক্লায়েন্ট এ পরিনত করার। সেই সুযোগকে কাজে লাগাতে এবার নিজের সেরাটা ঢেলে দিন।

২) চিন্তা করুন আপনি দোকানে গেছেন প্রোডাক্ট কিনতে, ৪-৫ টা দোকান ঘুরবেন, মোটামুটি সব দোকানেই একই ধরনের বা একই ব্র্যান্ডের প্রোডাক্ট পাওয়া যায়, কিন্তু কিছু ফ্যাক্টরের উপর বেইস করে আপনি কোন স্পেসিফিক দোকান থেকে পন্য কিনেন। সেগুলোর মদ্ধে নির্ভর করে বিক্রেতার আন্তরিকতা, প্রফেশনালিজম, আপনাকে ভাল প্রোডাক্ট দেয়ার চেষ্টা করাটা। দোকানের ওভারওল প্রেজেন্টেশন ইত্যাদি।

আপনার ক্ষেত্রেও ঠিক একই ব্যপার কাজ করবে। আপনার পোর্টফোলিও,প্রোফাইল বায়োগ্রাফি এগুলো হলো দোকানের প্রেজেন্টেশনের মত। বিক্রেতার আন্তরিকতা বা প্রফেশনালিজম আপনার ক্ষেত্রেও একই কাজ করে। আপনি আন্তরিক, প্রফেশনাল এবং আপনার চেষ্টা যদি হয় ক্লায়েন্টকে ভাল একটি কাজ দিবেন এবং সেটা ক্লায়েন্টকে বুঝাতে পারেন তাহলে সেটা আপনাকে হেল্প করবে কাজটি পেতে।

৩) আপনার যদি ইংরেজিতে কথা বলতে সমস্যা না থাকে, তাহলে চেষ্টা করবেন সবসময় ক্লায়েন্ট এর সাথে কথা বলতে, চ্যাটিং নয়, মুখে কথা বলবেন। এতে করে ক্লায়েন্টের চাহিদা যেমন বুঝতে সুবিধা হয় ঠিক তেমনি সময়’ও কম লাগে। আমি দেখেছি আজ পর্যন্ত যত ক্লায়েন্টের সাথে আমি ভয়েস চ্যাট করেছি তার ৯০%+ আমাকে কাজ দিয়েছে। তবে শুধু কথা বলতে পারলেই হবে না। সেই কথা থেকে যেন ক্লায়েন্ট আপনাকে কাজ দিতে কনফিডেন্স পায় সে দায়িত্ব কিন্তু আপনার নিজের।

৪) সময় এবং সুযোগ করে নিয়ে কিভাবে কাজ করবেন সেই ব্যপারগুলো ডিসকাস করবেন। যদি এক্সিস্টিং কোন সিস্টেমের উপর কাজ করতে হয় তাহলে এক্সিস্টিং সিস্টেমের ভাল-মন্দ বলার চেষ্টা করবেন। এক্ষেত্রে ক্লায়েন্ট এক্সিটিং সিস্টেমের ভাল মন্দ জানতে চায় কিনা সেটা বুঝার চেষ্টা করে সে অনুযায়ী স্টেপ নিবেন।

৫) সবচেয়ে বড় ব্যপার হলো, নিজেকে সবসময় ক্লায়েন্ট এর পজিশনে বসিয়ে তার এঙ্গেল থেকে দেখার বা চিন্তা-ভাবনা করার চেষ্টা করবেন। তাহলেই অনেক কিছু পরিষ্কার হয়ে যাবে এবং ডিসিশন নিতে সেটা সাহায্য করবে।

 


শেষ কথাঃ

১. কাজ পারবো না কিন্তু অন্যকে দিয়ে কাজ করিয়ে দিবো এ মনোভাব ত্যাগ করুন। নিজে কাজ পারলেই সেটা নিন। অন্যকে দিয়ে যে কাজ করাবেন, সে কাজটি অন্য কাউকে’ই নিতে দিন।

২. আপনার কারনে যেন ক্লায়েন্টের ডেডলাইন মিস না হয় বা প্রজেক্ট ফেইল না করে, সে ব্যপারে সবসময় খেয়াল রাখুন।

 


কেমন হলো জানাবেন। ভাল লাগলে শেয়ার করতে পারেন বন্ধুদের সাথে।  কোণ প্রশ্ন থাকলে কমেন্ট সেকশনে জানাতে পারেন। ধন্যবাদ সবাইকে।

Kazi Mamun

Kazi Mamun

আমি কাজী মামুন, পেশায় ওয়েব ডেভেলপার। ইউ.আই. ইউ.এক্স এবং ওয়ার্ডপ্রেস নিয়েই কাজ করা হয়। এর বাইরে নতুন নতুন গ্যাজেট নিয়ে ঘাটা-ঘাটি করতে ভাল লাগে। টেকনোলজি নিয়ে টুকটাক লেখালেখি, মাঝে মাঝে ইউটিউব ভিডিও বা পডকাস্ট করতে ভাল লাগে।

2 Comments

আপনার মতামত দিন...